সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৫:১৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
সবাইকে অবাক করে বিজয়-নাঈমদের জাতীয় দলের কামব্যাক ইস্যুতে মুখ খুললেন মাশরাফি দুই পরিবর্তন নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সম্ভাব্য শক্তিশালী একাদশ ঘোষণা করলো বাংলাদেশ! দ্বিতীয় টেস্ট খেলা নিয়ে সাকিবের নতুন সিদ্ধান্ত জানালো জালাল ইউনূস একাদশে মুস্তাফিজকে রাখা হবে কিনা জানিয়ে দিলেন প্রধান কোচ রিকি পন্টিং দুইটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসবে ভারত ইমরুল কিংবা সাব্বির নয় অবহেলিত যে দুই ক্রিকেটারকে জাতীয় দলে দেখতে চান মাশরাফি মসজিদ নির্মাণে শায়খ আহমাদুল্লাহর কাছে সোনা পাঠালেন দাতারা যেভাবে বানাবেন মিষ্টি কুমড়ার ‘বেগুনি’ ঢাকায় কালবৈশাখী, তিন বিভাগে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা টিপ নিয়ে সুশীল সমাজ যতো সরব, হিজাবের বেলায় কেন এমন সরব হন না : প্রশ্ন শায়খ আহমাদুল্লাহর
এশিয়ার তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে রেকর্ড গড়লেন মাহমুদুল হাসান জয়

এশিয়ার তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে রেকর্ড গড়লেন মাহমুদুল হাসান জয়

এশিয়া তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে রেকর্ড গড়লেন মাহমুদুল হাসান জয়
এশিয়া তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে রেকর্ড গড়লেন মাহমুদুল হাসান জয়

দক্ষিণ আফ্রিকায় কন্ডিশন যেকোনো দেশের ব্যাটসম্যানদের জন্য বরাবরই কঠিন। এখন পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে খুব কম ব্যাটসম্যানই সাফল্য পেয়েছেন। তবে গতকাল বাংলাদেশ দলের তরুণ ব্যাটসম্যান মাহমুদুল হাসান জয় দেশে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন।

৩২৬ বলে ১৩৭ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেছেন জয়। এশিয়ার মাত্র তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে জয় দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে তিনশর বেশি বল খেলার কীর্তি গড়েছেন। রাহুল দ্রাবিড় ১৯৯৭ সালে ১৪৮ রানের ইনিংস খেলার পথে ৩৬২ বল খেলেছিলেন। টেন্ডুলকার ২০১১ সালে ১৪৬ রান করার জন্য খেলেছিলেন ৩১৪ বল।

এই ব্যাটসম্যানের পর তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে তালিকায় যোগ হয়েছেন মাহমুদুল হাসান জয়। এছাড়া মাত্র চারজন ব্যাটসম্যান চারশ মিনিটের বেশি সময় ক্রিজে থেকেছেন। জয় ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলছেন ৪৪২ মিনিটে। দ্রাবিড় ১৪৮ রান করেছিলেন ৫৪১ মিনিটে। টেন্ডুলকার ১৪৬ রান করতে ৪৬৫ মিনিট ক্রিজে থেকেছেন।

এছাড়া লোকেশ রাহুল ১২৩ রান করেছেন ৪০২ মিনিটে। এশিয়ার মাত্র তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি পেয়েছেন জয়। ১৯৯২ সালে ভারতের প্রবীন আমরো ১০৩ রান করেছিলেন। ২০০১ সালে শেবাগ করেছিলেন ১০৫ রান।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 worldinbangladesh.com