শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১, ০৯:০২ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
আমার নিজস্ব কোনো থাকার জায়গা নেই, আমার কোনো বাড়ি নেই, এক কাঠা জমিও নেই: সুজন কড়া নজরদারিতে মামুনুল হক, নির্দেশনা পেলেই গ্রে’প্তার! পালাতক মামুনুল হক, মামুনুলকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না স্ত্রী’কে নিয়ে বেড়াতে গিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের হাতে মামুনুল হক অ’বরুদ্ধ এইমাত্র পাওয়াঃ ভক্তদের কা’ন্নার সাগরে ভাসিয়ে কলকাতাকে বিশাল সমস্যায় ফেললেন সাকিব মতিঝিলে মোদিবি’রোধী বি’ক্ষো’ভ, ‘শি’শুবক্তা’ রফিকুল আ’টক অবশেষে আইপিএল বাদ দিয়ে দেশে সিরিজ খেলবেন সাকিব অবশেষে আইপিএল বাদ দিয়ে দেশে সিরিজ খেলবেন সাকিব অধিনায়কের নাম ঘোষণা করলো কলকাতা নাইট রাইডার্স তাসকিন, রুবেলকে বাদ দিয়ে যে পেসার নিয়ে ১ম ওয়ানডের জন্য শক্তিশালী দল ঘোষণা করলো ডোমিঙ্গ
রামমন্দির নির্মাণে আল্লাহর পক্ষ থেকে ‘কুদরতি’ বা’ধা: “মন্দিরের ভর ধরে রাখার মতো ক্ষ’মতা নেই মাটির”

রামমন্দির নির্মাণে আল্লাহর পক্ষ থেকে ‘কুদরতি’ বা’ধা: “মন্দিরের ভর ধরে রাখার মতো ক্ষ’মতা নেই মাটির”

অযোধ্যায় ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ শহীদ করে রামমন্দির নির্মাণের কাজে ফের বা’ধা পড়েছে। এতদিন আইনি জটিলতায় রামমন্দির নির্মাণ বা’ধাগ্রস্ত হয়েছিল।

গত বছর ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের বি’তর্কি’ত নির্দেশের পর রামমন্দির নির্মাণে বাহ্যিকভাবে বা’ধা ছিল না। গত ৫ আগস্ট ঘটা করে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তরও স্থাপন করেছেন।

কিন্তু এবার কুদরতি বা’ধার সম্মুখীন রামমন্দিরের নির্মাণ। ফলে একপ্রকার মাথায় হাত দিয়ে বসেছে রাম জ’ন্মভূমি ট্রাস্ট।

শ্রী রাম জ’ন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্ট জানিয়েছে, মাটি পরীক্ষার পর দেখা গেছে, মন্দিরের ভর ধরে রাখার মতো ক্ষ’মতা নেই নির্মীয়মাণ কাঠামোর। যার জেরে সমস্যায় মন্দির নির্মাণের কাজ।

ফলে বিকল্প উপায় খুঁজে বেড়াচ্ছে ট্রাস্ট। আইআইটি, এনআইটি, সেন্ট্রাল বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট (রুরকি), এবং লারসেন অ্যান্ড টিউব্রোর মতো সংস্থার প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা মন্দিরের প্রস্তাবিত গ’র্ভগৃহের পশ্চিম দিকে পানির তোড়ে বেলেমাটি ধসে যাওয়ার দরুন সমস্যার সম্মুখীন।

গোটা স্থাপত্যের যে নকশা লারসেন অ্যান্ড টিউব্রো জমা দিয়েছে, তাতে দেখা গেছে, ভূপৃষ্ঠ থেকে ২০-৪০ মিটার গভীরে ১২০০ কংক্রিট পিলার বসানো হবে। ট্রাস্টের স’চিব জানিয়েছেন, বেশ কয়েকটি পিলার ভূপৃষ্ঠ থেকে ১২৫ ফুট নিচে বসিয়ে তার ২৮ দিন পর পরীক্ষা করা হয়েছিল।

সেই স্তম্ভগুলোর উপর ৭০০ টন ভর চা’পিয়ে পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু আশাতীত ফল পাওয়া যায়নি। মেশিনে যে রিডিং পাওয়া যায় সেটা আশা করা হয়নি।

বস্তুত, গ’র্ভগৃহের পশ্চিম দিকে সরযু নদী বয়ে চলেছে। যেখানে পিলারগুলো বসানো হয়েছে তার পাশেই নদীর পানি এবং বেলেমাটি রয়েছে। ইঞ্জিনিয়ারদের মতে, নরম বালি স্থাপত্যের ভর ধরে রাখতে পারবে না।

তাই বিশেষজ্ঞরা চিন্তাভাবনা করছেন কীভাবে মন্দিরের গ’র্ভগৃহের কাছে নদীর পানিকে আ’টকে রাখা যায়। কীভাবে বালির উপর স্থাপত্য তৈরি করা যায় এবং কংক্রিট পিলারের আয়ু বাড়ানো যায়।

আপনার বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট টি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক মন্তব্য

    © All rights reserved © 2018 worldinbangladesh.com